কেস স্টাডি-নন বায়িং কিওয়ার্ড থেকে আয় বৃদ্ধি

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

আমাদের ক্লায়েন্টের একটি সাইটের এনালিটিক্স পরীক্ষা করে দেখলাম একটা কিওয়ার্ড দিয়ে প্রতিমাসে প্রায় ১২০০ বেশি ভিজিটর আসে। কিওয়ার্ডটি হলো How To Clean … ধরনের। প্রকৃত কিওয়ার্ডটি উল্লেখ করছি না। কিওয়ার্ডের সার্চ ইন্টেন্ট খেয়াল করলে দেখা যাবে কিওয়ার্ডটি দিয়ে যে ভিজিটর আসে তার কাছে যে প্রোডাক্টটি আছে তা পরিস্কার কিভাবে করতে হবে তা শিখতে চাচ্ছে।সাইটি একটি নির্দিস্ট ধরনের প্রোডাক্ট রিভিউ সাইট। এই কিওয়ার্ড দিয়ে যে ভিজিটর আসে তাদের কাছে সেই প্রোডাক্টটি আছে তাই তারা সাইটি থেকে কোন প্রোডাক্ট কিনবে না।  এই পেইজে যে ভিজিটর আসে তা থেকে ক্লায়েন্ট কোন প্রকার উপার্জন করছে না।

এই কিওয়ার্ডটি নিয়ে যে পেইজটি তৈরি হয়েছে তা পরীক্ষা করে দেখলাম তার বাউন্স রেট ৯০% এর উপরে। তাতে বুঝা যায় ভিজিটর এসে লেখাটি পড়ে বের হয়ে যাচ্ছে। দুইটা কারন হতে পারে ১) ভিজিটর যে তথ্যের জন্য এই পেইজে এসেছে তা হয়তো যথার্থ না । অথ্যাৎ কনটেন্টের কোয়ালিটি ও তথ্য কিওয়ার্ডের সাথে মিল নাই।  এই বিষয়টি বুঝার জন্য অবশ্যই পেইজে অবস্থানের সময় পরীক্ষা করলেই বুঝা যাবে। ২) ভিজিটর লেখাটি পড়ার পর তার পরের ধাপে যে ধরনের তথ্য দরকার তা সাইটে নাই।

দুইটি বিষয়কে নিয়ে কাজ করলে আমি নিশ্চিত যে এই পেইজ থেকে সাইটটি আরো উপার্জন করতে পারবে। প্রথম পদক্ষেপ হবে পেইজের কনন্টের গুনগত মান বৃদ্ধি করা । পেইজে পাঠকের অবস্থানের সময় বাড়লেই বুঝা যাবে কনটেন্টের গুনগত মান ইতিবাচক । দ্বিতীয় পদক্ষেপ হবে এই লেখা পড়ার পর পাঠকের যে ধরনের তথ্য লাগে সেই ধরনের কন্টেন্টের লিঙ্ক লেখার শেষে যোগ করা এবং পাঠককে সেই লিঙ্কে ক্লিক করতে উৎসাহিত করা।

ক্লিন করতে হলে কিছু এক্সেসরিস লাগে। আমরা কিছু এক্সেসরিসের এফিলিয়েট লিঙ্ক যোগ করে দিয়েছি। এতে করে কিছু কিছু ভিজিটর এই লিঙ্ক অনুসরণ করে সেই প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানবে এবং কেউ কেউ কিনবে। সাইটি কিছু কমিশন আয় করবে। আবার কিছু কিছু পাঠক আরো তথ্য খুজবে। তাদের জন্য এডসেন্স কোড বসিয়ে দিয়েছি। এডসেন্স যেহেতু রিলেটেড কনটেণ্ট দেখায় তাই কোন কোন ভিজিটর এডসেন্স এডে ক্লিক করবে। এতে করেও আরো কিছু আয়ের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

পেইজটি মূল কিওয়ার্ডটির জন্য ৩ নং পজিশনে র‍্যাঙ্ক করছে। আমরা এনালাইসিস করেছি কিছু লিঙ্ক তৈরি করলে পেইজটি ১ নং পজিশনে আসবে।  ১ নং পজিশন ও ৩ নং পজিশনে থেকে পাওয়া ভিজিটরের পরিমান অনেক পার্থক্য হয়। আমরা আশাকরি ১ নং পজিসনে আসলে ভিজিটর ২০০০ এর মতো হবে।

ইঙ্কাম ও ভিজিটর বৃদ্ধি নিয়ে নিয়মিত এই পেইজটি আপডেট করবো। আপডেট পেতে নিউজলেটারে সাইন আপ করতে অনুরোধ করছি।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত জানাতে ও লেখাটি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে অনুরোধ করছি।

 

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

এফিলিয়েট মার্কেটিং ফ্রি ও পেইড ট্রাফিক নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট

এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের সাফল্য নির্ভর করে সাইটের ট্রাফিকের উপর। ট্রাফিক দুই ভাবেই তৈরি করা যায় – ফ্রি ও পেইড পদ্ধতিতে। ফ্রি ট্রাফিক মানে অর্গানিক ট্রাফিক। সার্চ ইঞ্জিন, সোশ্যাল মিডিয়া ও অন্যান্য রেফারেল সাইট থেকে আসে। পেইড ট্রাফিক অবশ্যই বিজ্ঞাপন থেকে আসে। ফ্রি ট্রাফিকের জন্য সার্চ ইঞ্জিন হচ্ছে সব চাইতে বড় উৎস। সার্চ ইঞ্জিন থেকে ট্রাফিক পেতে […]

Continue reading...

এফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য ইনফরমেশন ভিত্তিক ওয়েব সাইটের ভিত্তি

এফিলিয়েট মার্কেটিং অনেক ভাবে করা যায়। যেমন লিস্ট বিল্ডিং ( ইমেল মার্কেটিং ), পেইড মার্কেটিং ও ইনফরমেশন ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করে। ইনফরমেশন ওয়েবসাইট তৈরি করার ভিত্তি হলো – নিশ নির্বাচন, কিওয়ার্ড রিসার্চ, অনপেইজ এসইও, লিঙ্ক বিল্ডিং ও সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং । নিশ নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এমন একটি নিশ নির্বাচন করতে হবে যাতে পর্যাপ্ত পরিমান […]

Continue reading...

এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করার আগে খরচের বিষয়টি জেনে নিন

এফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে বাংলাদেশে আগ্রহ অনেক বেড়েছে। ২০১০ সালের দিকে এফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে বাংলাদেশে তেমন আলোচনা হতো না। ফেইসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে ফ্রিল্যান্সিং নিয়েই বেশি আলোচনা হতো।তখন বিভিন্ন গ্রুপে এফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে বিভিন্ন আলোচনায় অন্যদের মনোযোগ আকর্ষনের চেস্টা শুরু করি। এই বিষয়ে কিছু দিন আগে ঢাকায় এক আলোচনার টেবিলে আসিফ আনোয়ার পথিক ভাই অন্যদের বলছিলেন। তিনি […]

Continue reading...

সেল বাজারের নতুন নাম নিয়ে প্রতিক্রিয়া

amit

সেলবাজার বাংলাদেশের একটি অন্যতম ক্লাসিফাইড সাইট। সম্প্রতি তারা তাদের নামের পরিবর্তন করে এখানেইডট কম রেখেছে। নতুন নামের ধরন দেখেই বুঝা যায় তারা এখনিডটকমের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে। এখুনি নামটি খুবই সৃজনশীল একটি নাম। গত চার বছর ধরে এখুনিডটকমের টিম কঠোর পরিশ্রম, সৃজনশীল মার্কেটিং করে অনলাইনে বিজনেস গুলোর মধ্য প্রথম সারির একটি ব্রান্ডে পরিনত হয়েছে। এখনিডটকমের বর্তমান […]

Continue reading...

ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ১৪ – আমার টেকনিক্যাল সেশন নিয়ে অভিজ্ঞতা

11

  ২০১৪ সালের ডিজিটাল ওয়াল্ড ফেয়ারে একটি টেকনিক্যাল সেশন নিলাম। বিষয় বস্তু ছিলো কিভাবে অনলাইনে বিক্রি করা শুরু করা যায় (How To Start Selling Online)। আমার সেশনটি ছিলো মেলার দ্বিতীয় দিন – ৫ জুন সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা থেকে। বাংলাদেশে অনলাইনে কেনা বেচা দ্রুতই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। অনেকেই অনলাইনে একটা ব্যবসা শুরু করতে চায়। অনেক ভাবেই […]

Continue reading...

শেখার আগে আয় – সবাই যা করতে চায় আর সবাইকে যা জানানো হয়

ফ্রিল্যান্সিং সহ অন্যান্য উপায়ে অনলাইন থেকে আয় করতে যারা চায় তাদের অনেকেই শেখার আগেই উপার্জন করতে চায়।অভিজিৎ দাশের সাথে আজ কথোপকথনের তিনি তাই আমাকে বললেন। অভিজিৎ এফিলিয়েট মার্কেটিং শিখতে চাচ্ছে । এই বিষয়ে তিনি আমার সাথে আলাপ করছিলেন। উনি একটা বায়িং হাউসে চাকরি করেন। তিনি আরো বললেন ক্লায়েন্টদের থেকে টাকা বের করা অনেক কঠিন এই […]

Continue reading...

এস ই ও শিখতে কি শিখতে হবে

এসইও যারা শিখতে চায় তাদের জন্য লেখা নিবন্ধের প্রথম পর্বে এসইও নিয়ে কিছু বিষয় তুলে ধরেছি। যারা এসইও শিখতে চাচ্ছে তাদের শিখার কারন কি হতে পারে তা উল্লেখ করেছি। যেহেতু আমি লক্ষ্য করেছি অনেকেই আসলে এসইও শিখতে চাচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য তাই তাদের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটে বাংলাদেশের অধিকাংশ ফ্রিল্যান্সাররা কি ধরনের কাজ করে সেই বিষয়টি […]

Continue reading...

যে ৯ টি বিষয় প্যাট থেকে শিখে আপনিও তথ্য ভিত্তিক সাইট থেকে আয় করতে পারেন

sidebar-hello

যারা এফিলিয়েট মার্কেটিং বিষয়ের সাথে জড়িত তাদের  অনেকেই স্মার্ট পেসিভ ইঙ্কাম সাইটের (smartpassiveincome.com) প্যাট সম্পর্কে জানেন । অতি সফল অনলাইন তথ্য উদ্যোক্তাদের মধ্যে প্যাট অন্যতম। স্মার্ট পেসিভ ইঙ্কাম সাইটে তার মাসিক আয়ের যে প্রতিবেদন দেয়া আছে তাতে তার গত মাসের আয় (মার্চ ২০১৪) পচাত্তর হাজার ডলারের উপরে। তিনি যে পদ্ধতিতে সাইট তৈরি করেন তা অনেকের […]

Continue reading...

নেগেটিভ এসইও প্রতারণার সুযোগ করে দিচ্ছে

negative-seo-humming-bird

নেগেটিভ এসইও মানুষের নৈতিকতা নস্ট করতে সাহায্য করতেছে। খুব মজার একটা বিষয় লক্ষ্য করলাম। সাধারনতঃ ক্লায়েন্ট ছোট এসইও প্যাকেজ গুলো অর্ডার দিতো ।তারা নিশ্চিত হতে চাইতো যে কাজ করা হচ্ছে তাতে তাদের সাইটের জন্য উপকারে আসতেছে ।  ছোট অর্ডার আসলে পরীক্ষামূলক অর্ডার।  ছোট অর্ডারে  ইতিবাচক ফলাফল পেলে তারপর বড় অর্ডার দিতো। এখন শুরুতেই ক্লায়েন্টরা সবচাইতে […]

Continue reading...